Home / আইপিও / স্বল্প মূলধনী প্লাটফর্মে পুঁজিবাজারে আসতে চায় ১২ কোম্পানি

স্বল্প মূলধনী প্লাটফর্মে পুঁজিবাজারে আসতে চায় ১২ কোম্পানি

ডেইলি শেয়ারবাজার রিপোর্ট: স্মল ক্যাপ বা সল্প মূলধনী প্লাটফর্মে পুঁজিবাজারে আসতে চায় তথ্য প্রযুক্তির ১২ কোম্পানি। কোম্পানিগুলোকে বাজারে আনতে প্রাথমিকভাবে বৈঠক করেছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচঞ্জ কমিশন(বিএসইসি)।

মঙ্গলবার (২ মার্চ) বিএসইসি’র কমিশনার অধ্যাপক ড. শামসুদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে এ নিয়ে কমিশনে একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কোম্পনিগুলো হলো-  সেবা.এক্সওয়াইজেড, চাল ডাল, যান্ত্রিক, ল্যান্ডনক, হ্যালো টাস্ক, বন্ড স্টেইন টেকনোলজিস, ব্রেইন স্টেশন২৩, ই-কুরিয়ার, খাস ফুড, সিএমইডি, ডিভাইন আইটি ও আননানোভাস আইটি লিমিটেড।

বৈঠকে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম, উপ পরিচালক মিরাজ-উস-সুন্নাহসহ বিএসইসি ও কোম্পানিগুলোর কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে মোহাম্মদ রেজাউল বলেন, পুঁজিবাজারকে আরও গতিশীল করার জন্য সম্মল ক্যাপ কোম্পানির জন্য আইন পাশ করা হয়েছে। তবে ডিএসই,সিএসই ও মার্চেন্ট ব্যাংকগুলো কাজ করছে না। ফলে আমরা কোম্পানিগুলোর সাথে বসেছি।

তিনি বলেন, আমরা প্রথম বৈঠক করেছি; তাদের কিছু প্রশিক্ষণ দিতে হবে। পরে তা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান হয়ে পুঁজিবাজারে আসবে।

প্রসঙ্গত, স্বল্প মূলধনী কোম্পানিগুলোকে উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে স্মল ক্যাপিটাল প্লাটফর্মে তালিকাভুক্তির উদ্যোগ নেয় বিএসইসি। বিএসইসির ৫৬৫তম সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এ বাজারে তালিকাভুক্তির জন্য স্বল্প মূলধনী কোম্পানিগুলোর পরিশোধিত মূলধন কমপক্ষে ৫ কোটি টাকা এবং তালিকাভুক্তির পর পরিশোধিত মূলধন কমপক্ষে ১০ কোটি টাকা থাকতে হবে। একই সঙ্গে সর্বোচ্চ পরিশোধিত মূলধন ৩০ কোটি টাকার নিচে থাকতে হবে। স্বল্প মূলধনী কোম্পানিগুলোকে তালিকাভুক্তির জন্য কোয়ালিফাইড ইনভেস্টর অফারের (কিউআইও) মাধ্যমে পুঁজি সংগ্রহ করতে হবে। তবে এ বাজারে শুধু কোয়ালিফাইড ইনভেস্টররা লেনদেন করতে পারবেন।

আর কোয়ালিফাইড ইনভেস্টর চিহ্নিত করতে সিডিবিএল ভিন্ন ধরনের বিও হিসাব প্রণয়ন করবে। সাধারণ বিনিয়োগকারীদের জন্য এই বাজার উন্মুক্ত থাকবে না। বিদ্যমান স্টক ব্রোকারদের মাধ্যমে বাজারে লেনদেন পরিচালিত হবে। এই বাজারে ডাইরেক্ট লিস্টিংয়ের মাধ্যমে কোনো কোম্পানি তালিকাভুক্ত হতে পারবে না এবং শেয়ারধারীদের শেয়ার একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত লক-ইন থাকবে। বাজারে লেনদেনের তারল্য বজায় রাখার জন্য ইস্যুয়ার কোম্পানিকে কমপক্ষে ৩ বছরের জন্য মার্কেট মেকার নিয়োগ করতে হবে।

ডেইলি শেয়ারবাজার ডটকম/এম

Check Also

ইনডেক্স এগ্রোর আইপিও লটারি ২২ মার্চ

ডেইলি শেয়ারবাজার রিপোর্ট: প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে অর্থ উত্তোলনের পক্রিয়ায় থাকা ‘ইনডেক্স এগ্রো …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *